Tuesday, 17 November 2009

তথাকথিত পৈত্রিক ধর্মের সমালোচনা করা হলো "প্রগতিশীলতা" আর বন্ধুর ধর্মের সমালোচনা করা হলো "সাম্প্রদায়িকতা"।

সুযোগের সদ্বব্যবহার করিয়া ঘোলা পানিতে মৎস্য শিকারের ন্যায় আনন্দ আর কিছুতেই নাই।


আমি বৈষম্যের মধ্যে জন্মেছি, লালিত পালিত হয়েছি, বৈষম্যের মধ্যে আমার কর্ম ও বাকি জীবন যাপিত হচ্ছে। আমায় বৈষম্যের জু জু দেখিয়ে কোন লাভ নেই। তবে আমি "পলাতকা" নই। আমি কোন কিছু থেকে পালাতে চাই না, সবকিছুর সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে আছি এবং আজীবন তাই থাকবো। মেয়ে হিসেবে কিংবা সংখ্যালঘু, দুর্বল হিসেবে কারো করুনা আগেও নেইনি এখনো চাই না। কেউ আমায় করুনা করবে তার আগেই যেনো আমার মৃত্যু হয়।


গরু খাওয়া এবং গরু না খাওয়ার মধ্যে যদি কোন মর্ম আসলেই থাকতো, তাহলে যেকোন একটি জাতি এতোদিনে নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতো।

 বন্ধুর ধর্মের সমালোচনা এড়িয়ে যাওয়া হলো সুশীলতা (রেজওয়ান হক)

একদিন সবকিছু ক্ষয়ে যাবে ----- শুধু পলিটিক্স রয়ে যাবে।

কিছু কিছু মানুষ হলো আক্কেল দাঁতের মতো, কোন কাজে লাগে না মাঝে মাঝে শুধু ব্যথা করে।
এরা থাকলেও কোন কাজে লাগে না আবার তুলে ফেললেও কোন অসুবিধা হয় না। (ফারিয়া শারমিন)

কিছু লোক হলো এশু দাদু। তাদের দল, বন্ধু, স্ত্রী, সাথী বদলাতে সময় আর লজ্জা কোনটাই লাগে না। তাদের চাই পরের ওপর পোদ্দারী, তা যেকোন মূল্যেই হোক যেকোন মূল্যে।
চোখের পর্দা থাকলে রাজনীতি করা যায় না।

প্রবাসে রাজনীতি করার প্রধান অস্ত্র আর কৌশল হলো টেলিফোন, দামী গিফট আর দাওয়াত করে ভালোমন্দ খাওয়ানো।

বিশ্বাস ও ভালোবাসা পরস্পর পরিপূরক; তবু ভালোবাসতে হয় যুক্তিহীনভাবে, আর বিশ্বাস করতে হয় যুক্তিনিষ্ঠতায়। (নুপূর এর ফেসবুক স্ট্যাটাস)
জানি এসব গল্প অচল এই সময়ে
অন্যরকম গল্প সবাই চায়;
জানতে পারি নি তখনো সত্যি কি আর হয় কখনো
এসব শুধু বাতিল পুরোন গদ্যতে মানায়
(আরিফ বুলবুল)
ভালো সময়ের একটা খারাপ দিক হলো, তা একসময় শেষ হয়ে যায়। আর খারাপ সময়ের একটা ভালো দিক হলো, তাও একসময় শেষ হয়ে যায়। (রেনেট গোমেজ)
"ভুল করি কত শত
তবু‌ও...
চলছি আমি আমার মত...।" (ঈশান মাহমুদ)


একটা লিষ্ট বানাচ্ছি, আবার প্রথম থেকে শুরু করার সুযোগ থাকলে কোন কোন ভুলগুলো শুধরে নিতাম ... ... ... ... ...

হয়তো যাবে ভুলে / সাত সতের তলে / তবুও হঠাৎ কোনদিন, কখনো ............... যদি মনে পড়ে এই ছোট্ট শিশির / আলতো ছোঁয়ায় মুছে দিও না তার ঐশ্বর্য / তোমায় ভাবতে ভাবতে একদিন কুয়াশা হবো / মিষ্টি আলোর গন্ধ নিয়ে মিশে যা্বো নীল সীমানায়।

ঝি'কে মেরে বউকে শেখানোর দিন বাদ, মর্ডান বউরা অনেক চালাক, তারা কিছু শিখে না, মাঝখান থেকে মার খেয়ে তক্তা মর্জিনা

এখন আমার সমস্ত পথজুড়ে টলমল করছে একটি অশ্রুবিন্দু।
ওই অশ্রুবিন্দু পেরিয়ে এ-জন্মে হয়তো আমি তোমার কাছে পৌছোতে পারবো না।
কেনো পৌছোবো?তাহলে আগামী জন্মগুলো আমি কার দিকে আসবো? (হুমায়ুন আজাদ)

পাগলীমার ঘুমিয়ে পড়েছে
মুঠো ফোন তাই শান্ত,আমি রাত জেগে দিচ্ছি পাহারা
মুঠো ফোনের এই প্রান্ত
এ কথা যদি সে জানতো ?
মুঠোফোনের কাব্য - নির্মলেন্দু গুন

বেহিসেবি কথা বলার একজন বন্ধু দরকার
বেয়াড়া সময় কাটানোর একটা জীবন
বেসামাল হারিয়ে যাবার একটা অরণ্য আর
বেহুদা লেখালেখি করার একটা খাতা ............
নীড় সন্ধানী (হারুন ভাই)
কথা নয় মুখে মুখে, ও ঝামেলা গেছে চুকে, কথা হবে এসএমএসে, কথা হবে ফেসবুকে। (আনিসুল হক)

আকাশ জুড়ে বৃষ্টি আর বৃষ্টি ভেজা মন
মন চাইছে থাকুক ভাল আমার আপনজন
নীল আকাশ আজ মেঘে ঢাকা কালো
আমি আছি ভালোই বন্ধু
তুমিও ও কি ভালো?

ছেড়ে দেয়া মানে হেরে যাওয়া নয়
মুখ ফিরিয়ে নেয়া মানেই ঘৃনা করা নয়।

সম্পর্কের উপাদান হলো বিশ্বাস আর ভালোবাসা। এর একটি হারিয়ে গেলে যা থাকে তার নাম হলো সমঝোতা।


সোনালি সোনালি চিল- শিশির শিকার করে নিয়ে গেছে তারে
কুড়ি বছরের পরে সেই কুয়াশায় পাই যদি হঠাৎ তোমারে!
শেষবার তার সাথে যখন হয়েছে দেখা মাঠের উপরে,বলিলাম: ‘একদিন এমন সময়, আবার আসিয়ো তুমি….আসিবার ইচ্ছা যদি হয়--পঁচিশ বছর পরে!'
 
অন্যায় করে অপরাধ করে ক্ষমা চাইলেই যদি সৃষ্টিকর্তা তাদের ক্ষমা করেন, তাহলে সে সৃষ্টিকর্তার মহানত্ব নিয়ে আমি সন্দেহ প্রকাশ করলাম

কিছু কিছু মানুষের জন্মই হয়েছে অন্যকে শিক্ষা দেয়ার জন্যে, তারা যদি নিজেদের অতীত থেকে কিছু শিখতো ......।

জীবন মানেই হারিয়ে ফেলা জিনিসকে খুঁজে যাওয়া 04092011
"আমার সততায় তুমি প্রশ্ন তুলতে পারো, আমি ঈশ্বরকে মধ্যস্থতায় ডাকবো না।" Aparna Howlader
আমাকে খোঁজো না তুমি বহুদিন-কতদিন আমিও তোমাকে
খুঁজি নাকো; এক নক্ষত্রের নিচে তবু-একই আলো পৃথিবীর পারে
আমরা দুজনে আছি; পৃথিবীর পুরনো পথের রেখা হয়ে যায় ক্ষয়,
প্রেম ধীরে মুছে যায় নক্ষত্রেরও একদিন মরে যেতে হয়
Jibonando dash
চলে যাওয়া মানে প্রস্থান নয়, বিচ্ছেদও নয়……
চলে যাওয়া মানে নয় বন্ধন ছিন্ন করা আর্ত রজনী……
চলে গেলে আমার চেয়ে
অধিক কিছু রয়ে যাবে,আমার না থাকা জুড়ে……”... 
Some people are more punished than their mistakes, tht’s just not fair
I hate you not because you left me. I hate you because you said that you would not leave!

হাজার উজ্জল কথা শুনে চুপচাপ ফিরে আসি বাড়ি
কাল পরশু যেমন ছিলাম
আজো সেই তেমন ভিখারি .........ভাস্কর চক্রবর্তী

বিবর্তনের কারণে প্রকৃতি এখন ছাগু বান্ধব

ছেড়ে দেয়া মানেই হেরে যাওয়া নয়

জীবনের কি কোনো অর্থ আছে? থাকলে সেটা কি?'- প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছিলেন- ‌'জীবনের কোনো অর্থ নেই, আমরা অর্থ আরোপ করি। জীবনকে তুমি একটি ঘর হিসেবে কল্পনা করে নিতে পারো, যার চারটি দেয়ালই শূন্য। এই শূন্য দেয়ালগুলো নিয়ে আমরা কী করতে পারি? সুন্দর মনোহর সব ছবি এঁকে শূন্য দেয়ালগুলোকে ভরিয়ে তুলতে পারি, অথবা প্রশ্রাব করে, থুথু দিয়ে দেয়ালগুলোকে নোংরা করে তুলতে পারি, কিংবা কিছুই না করে স্রেফ শূন্য দেয়ালগুলোর দিকে তাকিয়ে থেকেই সারাটা জীবন কাটিয়ে দিতে পারি।'
শামসুর রাহমান
শাসক যে রঙেরই হোক ভয়ানক, তার চোখ সবদিকে থাকে; কে তার সমর্থক, কে তার বিরোধী, সব হিসাবে রাখে.. vaskar da
কখন তোমার দেখা পাবো, চোখের পাতায় চুমু খবো? চোখের তারায় জিজ্ঞাসা-- বলো, কাকে বলে ভালোবাসা --------------kabir sumon
kloshi khali ki kore bujhi / tong tong shure jokhon ami baji :D
Some people are really SAD, because they suffer from Seeking Attention Disorder!
নদীর সংগে তোমাকে মেলাতে চাইনি মোটেও,
বরং নদীর বুকে দেখতে চেয়েছি তোমার প্রতিবিম্ব

আমার চোখের সামনে দিয়েই বদলে গেছি আমি
নিয়ম
হলো যা হারালো হারিয়ে গেলেই দামী............
কতদিন আমাদের কথা বলা বন্ধ, বাতাসে কেবল মনপোড়া গন্ধ! জেবীন
monke bolo moner kachhe, ëi to ami achhi", chader moto dur tobe thik josna kachakachi. Anupoma
তোমায় দিলাম রোদের পিছু পিছু স্তব্ধ দুপুর, ফড়িঙ ধরার খেলা.....
কান্না চেপে একা,
অনেক দূরে দাঁড়িয়ে থাকা আমার ছেলেবেলা' Rifat sanjida – tithidor
Ami ki tomar kew
Abar shob kichu
Jokhon dhorbe hath
Tokhon chaibo pichu
thakchi hoito onek dure
Royechi sarabela tmk ghire -----তানবীরা

আকাশ থেকে ছায়া ফেলে মেঘেরা যায় ভেসে যায় অজানায়, 
আর বসে থাকি একা আমি আমার প্রিয় জানালায়
অন্তরে বেজে চলেছে অবিরাম নাম না জানা ব্যাথার এক সুর
বসে আছি জানালায় বটে দৃষ্টির সীমা ছাড়িয়ে মন বহুদূর 
 
Tanbira/030511

আমাদের দেশের ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, এদেশ বার বার বহিঃশক্তির আওতায় এসেছেএটা সম্ভব হয়েছে আমাদের মধ্যকার অন্তর্কলহ আর এক শ্রেণীর সুবিধাভোগী চরিত্রের জন্যরাজাকারেরা হাজার বছর আগেও ছিল, এখনো আছেবহিঃশক্তির আপাত প্রস্থান ঘটলেও এই শ্রেণীটি নতুন প্রভু খুঁজে নেয় বা পুরনো প্রভুর জন্য আফসোসে বুক চাপড়ায়তৃণমূল পর্যায়ের মানুষ স্বচ্ছলতা আর শিক্ষার মধ্যে অনেকদিন থাকার সুযোগ পেলে স্বাধীন দেশের উপযুক্ত মানুষের মতো করে ভাবতে শিখবেতাদের অজ্ঞতা আর দারিদ্র্যের সুযোগ নিয়েই সুবিধাভোগী শ্রেণীটি নতুন নতুন দাস তৈরি করতে পারে
দুই নৌকায় পা (এনালগ ভার্সন) যতগুলা নৌকা ততগুলা পা (ডিজিটাল ভার্সন) তানবীরা ২০১২

বহু নামি লেখক আছেন যারা হুমায়ূন আহমেদের লেখার কোয়ালিটি নিয়ে বিদগ্ধ সমালোচনা ঝাড়েন কিন্তু নিজে লেখার সময় সচেতনভাবে তাকে অনুসরন করেন। বুদ্ধিজীবিদের সমস্যা কি? হুমায়ূনের ঈর্ষনীয় জনপ্রিয়তা নাকি তাদের নিজেদের ব্যর্থতা? তানবীরা ২০১২
প্রবাস জীবন মানে হলো উচ্চমানের নির্বাসন (হীরা নাজনীন)
লেখাপড়া জানা মানে হলো, লিখতে ও পড়তে জানা, এর মানে কখনোই শিক্ষিত হওয়া নয়। (গোলাম রব্বানী)

বাস্তবের শক্তি নেই প্রমানের দ্বারা স্বপ্নের মোহ ভাঙ্গাতে (হিরা নাজনীন)

বিপদে পড়লে কেউ কাউকে সাহায্য করে না
বরং বেশির ভাগ মানুষেরই চেষ্টা থাকে বিপদগ্রস্ত
ব্যক্তিকে এড়িয়ে চলার
সবাই নিজের স্বার্থ দেখে এ ভেবে, তার কারণে যাতে
আমার কোন বিপদ না হয়।
বিপদ আসলেই প্রকৃতভাবে টের পাওয়া যায়, মানুষ আসলে কতোটা একা বন্ধুহীন আর অসহায়। চেনা মুখের অচেনা আচরণ।
কিছু দুঃখ আছে বলার না, অনুভবের 
সবক নম্বর ওয়ান, ঝামেলায় পড়লেই লো প্রোফাইল মেইনটেইন করতে হয় 

ব্যথা - অপমান দেয়া যত সহজ, ভোলা তত কঠিন 

লড়াই সেটা যে অবস্থান থেকেই হোক না কেনো, একাই করতে হয়। জিতে গেলে পাশে অনেকে দাঁড়ান। 



গৃহশিক্ষক জানে, গৃহকর্তা তার মেয়েকে কোনদিনও তার হাতে তুলে দিবে না। ভাগিয়ে নিয়ে যাবে সে সামর্থ্যও তার নাই। তাহলে!!!??? তাহলে, নগদে যতোগুলো রাত কাছে পাওয়া যায় ততোটুকুই লাভ

কিছু কিছু প্রোডাক্ট এর কোন এক্সপায়ারী ডেট থাকে না :( 
What is the biggest art in this world? "provocation" 

কেউ কেউ সংগঠনে ঢুকে সংগঠক দলের হয়ে, বের হয় বিদ্রোহী দলের সাথে। একই ঘটনার অগনিতবারের পুনরাবৃত্তি কি নিছকই কাকতালীয় নাকি সেই নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য?


বাংলাদেশ পাকিস্তানমুক্ত হলেও ভারতমুক্ত হতে পারবো না কখনো

ব্যর্থ মানুষেরা দু প্রকার। এক প্রকার হল, যারা কাজের চিন্তা করেছে কিন্তু কাজ করেনি। আরেক প্রকার হল, যারা কাজ করেছে কিন্তু চিন্তা করে তা করেনি।


বিশ্বাসে মানুষ খায় ধোকা
যারা বিশ্বাস করে তারা বোকা


আছি আমি ধরায় ধরায়, আছি আমি নিখিলে

পাবে তুমি দেখতে আমায়, চক্ষু মেলে দেখিলে :D (১৪.০৮.২০১২) 


পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় ভন্ড কারা

যারা সবচেয়ে বেশি সাধু সাজার চেষ্টা করে তারা (আফ্রিনা রিমু)



কে বলে জাগতিক জিনিষে সুখ নাই? উইন্টার ইজ নকিং এট ডোর। আজকে মন খুলে শপিং করলাম। ঈদের মতো আনন্দ লাগতেছে। কখন যে সকাল হবে, পরে সব অফিসে যাবো, সময়ই কাটছে না ---- আহ লাইফ ইজ সো গুড (02.10.2012)


লেট টু বেড এন্ড লেট টু রাইজ, মেকস লাইফ সুপার ডুপার হালুয়া টাইট (02.10.2012)



শিক্ষা মনকে আজকাল আর প্রশস্ত করে না বরং মনকে আরো বিভেদ শিখিয়ে ক্ষুদ্র বানিয়ে, পকেটকে প্রশস্ত করার রাস্তা বানিয়ে দেয়। যাতে মনের ক্ষুদ্রতা গুলো পকেটের জোরে ভাল করে এ্যাপ্লাই করা যায় (02.10.2012)
 



কথা বলার জন্যে বাঙ্গালী চাই
খাওয়া দাওয়ার জন্যে ইটালীয়ান চাই
শাড়ির জন্যে সর্ব ভারত চাই
ছুটি কাটানোর জন্যে মেক্সিকান বীচ চাই
নাচের জন্যে চাই ব্রাজিলিয়ান
রুপচর্চার জন্যে চাই থাই
সিনেমার জন্যে ইরানীয়ান
বেতন চাই ডলার কিংবা ইউরোতে
এ সব কিছু বল একসাথে কোথায় পাই (02.10.2012)


Tyrani of apathay = উদাসীনতা এর স্বৈরশাসন
 



ছোটবেলা ছোটবেলার সাথে হারিয়ে যায়। মেয়েদের কাজ হলো বাপের বাড়ি যেয়ে সারাবেলা হারিয়ে যাওয়া ছোটবেলাকে খুঁজে ফেরা।  (আম্মি)



বস্ত্রশিল্পকর্মীরা যদি ফেসবুক ব্যবহার করতেন, আজ তারা স্ট্যাটাসে স্ট্যাটাসে নোটে নোটে নিজেদেরকে খুঁজে পেয়ে কতো না আনন্দিত হতেন। ফেসবুক জুড়ে চলছে তাদেরকে নিয়ে আজ আমাদের সুশীল মাতম উৎসব। বাস্তব হলো, বাংলা সিনেমা? গার্মেন্টসের মেয়েরা দেখে, এই জুতা? গার্মেন্টসওয়ালীরা পরে, এই কাপড়? পুরাই তোরে গার্মেন্টসের মাইয়া দেখা যাইবো। সবাই রাষ্ট্রকে দোষ দিতে ব্যস্ত। রাষ্ট্র আসলে কি? বৃহত্তর জনতার মনমানসিকতার পরিচয়ইতো রাষ্ট্র, নয় কি? নিজেদের দায় কবে স্বীকার করেছেন, এই দেশের জনগন? আমরা কজন তাদেরকে মানুষের মর্যাদা দিয়েছি? সবাই মিলে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপাতে ব্যস্ত থাকে এই দেশের লোভী জনগন। (27.11.2012)



দেশে কোন একটা ঘটনা বা দুর্ঘটনা ঘটলে প্রধানমন্ত্রী কিংবা অনেক উচ্চবিত্ত দয়ালু মানুষেরা বলেন, তারা সেই শিশুটি, কিংবা নারীটি কিংবা পরিবারের দায়িত্ব নেন। দুর্ঘটনার দায়িত্ব তারা না নিলেও মানুষের দায়িত্ব তারা নেন। এই দায়িত্ব নেয়া বলতে আসলে কি কি ব্যাপার অর্ন্তভুক্ত থাকে? খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসা, শিক্ষা, স্বপ্ন? নাকি মাসকাবারী কিছু টাকা ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারটির হাতে গুঁজে দিয়ে আত্মতৃপ্তি?

বড় বোনটি হয়তো ছোট ভাইটিকে পড়াশোনা শিখিয়ে একজন অফিসার, ইঞ্জিনিয়ার কিংবা ক্রিকেটার বানাতে চেয়েছিলেন। অসুস্থ মাকে সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনতে চেয়েছিল। ছোট বোনটির জন্যে সুন্দর একটা জীবন চেয়য়েছিল। কর্তৃপক্ষ কি সেই স্বপ্ন পূরনের দায়িত্ব নেন? দায়িত্ব নেয়া কি আসলে এতো সোজা?
 

You can’t tell everything to anyone. Most of the genuine feelings is Only for yourself. So keep talking to yourself. 



 “Sobkichu joriye dhorte nei. Tobu ami opekkhay thaki, bhul Kore paa horke theme gele somoy, ami algoche tare dhore Tule nebo muthoy muthoy.”



“A friend to all is a friend to none.” - Aristotle
 

Tumi kon jole satar sikhecho nodi --------- sujan supantha 

Ovvesh bole kichu hoi na ei prithibite ----- palte phelay jibon


কাছে যাওয়া বড্ড বেশি হবে

এই খানেই দাঁড়িয়ে থাকা ভালো

 তোমার ঘরে থমকে আছে দুপুর

 বারান্দাতে বিকেল পড়ে এলো

শুনি আপন বুকের দুরুদুরু

সেখানে এক মত্ত আগন্তুক

 রক্ত কণায় তুলেছে তোলপাড়

 সেই খানেতেই সুখ আমার সুখ আলিঙ্গনের

প্রকান্ড এক বনে ঠোঁটে তোমার

দীপ্ত কমন্ডলু উপচে পড়ে বিদ্যুতে চুম্বনে. (সাতকাহন) 

  একটুখানি ভুলের তরে অনেক বিপদ ঘটে 
ভুল করেছে যারা সবাই ভুক্তভোগী বটে (আনিসুল হক)


ঘুম ভেঙ্গে তুই পাগল হয়ে খুঁজবি আমার হাতড়ে 
এমনই এক রাত্রে দেখিস (সখা) এমনই এক রাত্রে (অনীক খান) 

দুধে পানি মিশিয়ে লাভ কি ......... যদি গোয়ালা না হই,
আমিতো জানি............পানি তার নিজের মতো দামী
হয়তো দুধের চেয়েও  





আমাকে পাবে না প্রেমে, প্রার্থনায় নম্র হও পাবে

তৃপ্তির সন্ত্রাসে নও, পিপাসায় তপ্ত হও, পাবে



খোন্দকার আশরাফ হোসেন


বালক জানে নাতো কতোটা পথ গেলেফেরার পথ আর থাকে না কোন কালেবালক ভুল করে পড়েছে ভুল বইপড়েনি ব্যাকরন, পড়েনি মূল বই 

রফিক আজাদ


Tmr kotha vable:

pahar ondhokare hothat jege othe

Ekti nodi jhorjhoriye naame,

Pathor gole joler dhara phote


Tmr kotha vable: 

Ekti maath holud mekhe notun aloy darai

Ekti pakhi shish diye jai ure

Ekti meye somosto poth harai


Tmr kotha vable:

Dingi dheuer taale nache dule dule

Ekti meye kothay chole gelo

Tumi ki taake sottyi hariye dile
 

মেজো মামা পরীক্ষাটা দিতে পারেননি। তিনি হয়েছিলেন মুরগীর গ্রাম্য ডাক্তার। পড়তেন কার্ল মার্ক্স। আর মাঝে মাঝে পাগল হয়ে যেতেন। এই মেজোমামাই একদিন বলেছিলেন, মানুষের প্রয়োজনটাই বিশ্বাস। প্রয়োজনে না লাগলে সেটা অবিশ্বাস। আর ক্ষতি হলে বিশ্বাসহীনতা ছাড়া আর কিছুই নয়। যেমন পাকা আম খাদ্য। আর পচা আম অখাদ্য। এটা আমার পাগল মামার দর্শন। তাঁকে প্রণাম জানাই।

বিশ্বাস গড়ে ওঠে বিশ্বাস ভাঙ্গার জন্য। কোনো নির্দিষ্ট গণ্ডিতে চিরকাল পড়ে থাকাটা মূর্খতা।


কুলদা রায় ২৯/০৮/২০১৩




হৃদি ভেসে যায় অলকানন্দা জলে!অতল তোমার সাক্ষাত পেয়ে চিনতে পারিনি বলে/হৃদি ভেসে গেল অলকানন্দা জলে/করো আনন্দ আওয়োজন করে পড়ো/লিপি চিত্রিত লিপি আঁকাবাকাঁ পাহাড়ের সানুতলে/ যে একা ঘুরছে তাকে খুঁজে বার করো /করেছো অতল; করেছিলে ; পরে হাত থেকে লিপিখানি/ ভেসে যাচ্ছিল---ভেসে তো যেতই মনে না করিয়ে দিলে; / -'পড়ে রইল যে!' পড়েই থাকতো---সে-লেখা তুলবে বলে/কবি ডুবে মরে, কবি ভেসে যায় অলকানন্দা জলে !!( জয় গোস্বামী )



বিরহ কারে কয় ?
তুমিহীন যে একলা সময় , তারে কি বিরহ কয় ? 
আমার বসত চিরকাল তোমার ভিতর
তোমার ভাবনা , কল্পনা , জেগে থাকা , ঘুম সব আমিময়
তাহলে তুমিই বলো বিরহ কারে কয় ?

সাবরিনা সিরাজী তিতির 


*********

Akash jhepe bristi naame

Pakhna meli tao

Tmr meghe vashiye dilam

Mon poboner nao



সাকা চৌধুরীর আইনজীবী আহসানুল হক যুক্তি উপস্থাপনের সময় বলেছিলেন, রাষ্ট্রপক্ষের বেশির ভাগ সাক্ষী হচ্ছেন ভিখারি ও বাউণ্ডুলে, সামাজিক অবস্থানের জন্য তাঁদের বক্তব্যের ওপর আস্থা রাখা যায় না। বিপরীতে আসামিপক্ষের সাক্ষীরা হচ্ছেন অভিজাত ও সমাজের উঁচু শ্রেণীর ব্যক্তি। তাঁদের বক্তব্য বেশি গ্রহণযোগ্য। এ প্রসঙ্গে ট্রাইব্যুনাল বলেন, আমাদের সমাজে দেখা যায়, উঁচু শ্রেণীর মানুষেরা গরিব মানুষের চেয়ে ঘৃণ্য অপরাধে বেশি জড়িত থাকে।


একা থাকা মানে নিজের সঙ্গে থাকা! ....................কবি তারেক মাহমুদ 


Abdullah Al Tariqueডলা চলাকালীন সময়ে ইহা বর্ণনাতীত ঝাল; ডলা থামিলে ক্রমান্বয়ে তিতা হইয়া পরিশেষে টক হইয়া যায়; ভাগ্যদেবী কদাচিৎ মুখ তুলিয়া তাকাইলে শেষটা কিঞ্চিৎ মিষ্টিও হইতে পারে যাহারা ডলা এখনও গলাধ:করণ করেন নাই, তাহারা সবর্দাই ডলার স্বাদের ব্যাপারে উন্মুখ থাকে আর যাহারা ইতিমধ্যে ডলার চিমটি পরিমাণও স্বাদ পাইয়াছেন, তাহারা ডলা পূর্ববর্তী জীবনের সুখকর স্মৃতি রোমন্থন করিয়াই অবশিষ্ট জীবন পার করিয়া দেন


সুযোগ পেলে একবার একটা ভুলের দোকান দেবো
ছোট-বড় অসংখ্য ভুল
সাজিয়ে রাখবো সারা দোকান জুড়ে
আমি খুব বিশ্বাস নিয়ে প্রতিদিন খুলে বসবো
এক না একদিন তুমি আমার ক্রেতা হবে
আর আমি খুব সস্তা দামে
হাত বাড়িয়ে আমার দু'হাত ছোবার ভুলটা তোমার কাছে বিক্রি করে দেবো!   (ভুল ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোর
রাহাত রাস্তি

কিছু কিছু অনুরাগ
মানুষ এক জীবনে পায় না
কিছু কিছু কষ্টের দাগ
এক জনমে যায় না//


এইভাবে শূন্যই পড়ে থাকবে সবকিছু, শূন্যতাই সত্য, শূন্যতাই অনিবার্য... Ahmad Mostofa Kamal


ভেতরে বাহিরে আজ বৃষ্টি অবিরত, কাকে কাকে যেন লেগেছে তোমার মত। যতই হারিয়েছি খেই, তোমার মত তবু কেহ নেই। Ahmedur Rashid Tutul

মুখে মুখে আমি একাই একশ --- ভিতরে ভিতরে আমি রিক্ত নিঃস্ব


সকালে ব্লেডের ক্ষোভে কেটে গেলে গাল

ফিনকি দিয়ে যে রক্ত তুমি তার লাল (হুমায়ূন আজাদ)

when I think of you the sky turns from grey into blue.



আমাকে ঢেলেছি আমি তোমার গেলাসের মাপে প্রিয়
ইচ্ছে হলে পান কোরো ইচ্ছে হলে পুরো ফেলে দিও (আনিসুল হক)


আমায় তুমি উসকানি দাও চুমোয়
আমার মধ্যে বারোশ বাঘ ঘুমোয় (আনিসুল হক) 



যে আমায় চেনে আমি তাকেই চিনেছি
যে আমায় ভুলে যায়, আমি তার ভুল
গোপন সিন্দুকে খুব যত্নে তুলে রাখি
পুকুরের মরা ঝাঁঝি হাতে নিয়ে বলি,
মনে আছে, জলের সংসার মনে আছে?
যে আমাকে চেনে আমি তাকেই চিনেছি !

সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় 


আজ সারা দিন তোমার মুখ ভাবব
আজ সকালে এটাই আমার কাব্য
Anisul Hoque



দুঃখ সেও নেশার মতো লাগে 
যদি ওটা তোমার দেওয়া হয়, 
অন্য যতো দুখের কথা জানি 
তার কিছুই চাওয়ার মত নয় ।

তুমি আমার ভিতর বাড়ি চেনো 
তাই সহজে প্রবেশ করো মূলে, 
যারা আসে সুখের স্মৃতি হতে; 
হারায় তারা পথের হুলুস্হুলে।

-
 নির্মলেন্দু গুণ

The less you expect ---- the less you make mistake (collected)

আমি চিরতরে দূরে চলে যাব, 
তবু আমারে দেবনা ভুলিতে
আমি বাতাস হইয়া জড়াইব কেশ, বেনী যাবে যবে খুলিতে
তবু আমারে দেবনা ভুলিতে



গুনতে পারি না – কম দিলে ধরতে পারি 



সব মানুষের জীবনই খানিক খানিক করে ভুলে মেশানো । মানুষ তো নষ্ট হয় না কখনো । মাঝে মাঝে শুধু গোলমাল হয়ে যায় মানুষের । তাতে মানুষ ময়লাও হয় না ।  
শ্যামল গঙ্গোপাধ্যায় , “ হাওয়া গাড়ি


 বেঁচে থাকতে পারে তারাই যাদের বেঁচে থাকাটা অন্য কেউ চায়। " -শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, 
-"সাঁতারু আর জলকন্যা"


ক্লান্ত চোখে ক্লান্ত চোখের পাতা
তারো
 চেয়ে ক্লান্ত আমার পা,
যেথায় দেখি সাধের আসন পাতা
'একটু বসি?' জবাব আসে 'না।'


ঠিক এবং বেঠিকের ধারণার বাইরেও একটা প্রান্তর আছেসেখানেই তোমার সঙ্গে মিলব আমি
জালাল আদ-দ্বীন মুহাম্মদ রুমি



All you lack in regard to this book is confidence.” —Maxwell E. Perkins, Editor of Ernest Hemingway, Thomas Wolfe, F. Scott Fitzgerald and many others."

No comments:

Post a Comment